Bhabsamposaron

যুদ্ধ মানে শত্রু শত্রু খেলা / যুদ্ধ মানে আমার প্রতি, তোমার অবহেলা।

পৃথিবীর আদিকাল থেকে ধন-সম্পদে দুর্বলের উপর নিজের কর্তৃত্ব বজায় রাখার জন্য শুরু হয়েছে, যুদ্ধ নামক এক বিভীষিকার । বিভিন্ন সময়ে, বিভিন্ন কারণে যুদ্ধ ঘটেছে এই পৃথিবীতে। কিন্তু যুদ্ধ ব্যবসায়ীরা মনে রাখেনি যুদ্ধ মানে একে অপরের সঙ্গে শত্রু শত্রু খেলা যা তাদের দুপক্ষের ক্ষেত্রেই ক্ষতিকর। এই খেলার ফলশ্রুতি হল একজনের প্রতি অন্যজনের অবহেলা মাত্র, যা তাদের …

যুদ্ধ মানে শত্রু শত্রু খেলা / যুদ্ধ মানে আমার প্রতি, তোমার অবহেলা। Read More »

স্বার্থ যত পূর্ণ হয়, লোভ ক্ষুধানল তত তার বেড়ে ওঠে।

এই পৃথিবীতে বহু স্বার্থন্বেষী মানুষজন বসবাস করে। তারা কেবল নিজের স্বার্থের কথাই ভাবে। যতই তাদের স্বার্থ পূরণ হোক না কেন তাদের লোভ বেড়েই চলে ।আসলে তাদের ভোগস্পৃহা ও অর্থলালসার শেষ নেই। তারা যত পায় তত চায় । মন তাদের যেন ফুটো পাত্রের মতো , কিছুতেই তাদের চাওয়া পূর্ণ হয় না। সেই পাত্রে যতই সম্পদের জল …

স্বার্থ যত পূর্ণ হয়, লোভ ক্ষুধানল তত তার বেড়ে ওঠে। Read More »

চেরাপুঞ্জি থেকে , একখানা মেঘ ধার দিতে পারো গোবি সাহারার বুকে ?

পৃথিবী বৈচিত্র্যময়। কোথাও সবুজ বনানী আবার কোথাও রুক্ষ মরুভূমি।কোথাও অধিক বৃষ্টিপাত, কোথাও কঠোরতা রুক্ষতা । এই রকমই একটি অঞ্চল হল চেরাপুঞ্জি, যেখানে পৃথিবীর সবথেকে বেশি বৃষ্টিপাত হয়। অপরদিকে সাহারা মরুভূমি পৃথিবীর সব থেকে কম বৃষ্টিপাত যুক্ত অঞ্চল। তাই চেরাপুঞ্জি থেকে কিছুটা মেঘ যদি গোবি মরুভূমি বুকে ধার দিয়ে যায় তবে সেখানে প্রাণের স্পন্দন সম্ভব । …

চেরাপুঞ্জি থেকে , একখানা মেঘ ধার দিতে পারো গোবি সাহারার বুকে ? Read More »

শৈবাল দিঘিরে বলে উচ্চ করি শির লিখে রেখো, এক ফোঁটা দিলেম শিশির।

দিঘিতে জন্মগ্রহণ করা অন্যান্য উদ্ভিদের মধ্যে অন্যতম হল শৈবাল। দিঘিতে শৈবাল এর জন্ম এবং এটি তার বাসস্থান ও বটে। কিন্তু যখন শৈবালের উপর শিশির পড়ে তখন তা দিঘির অতল জল রাশির মধ্যে প্রদান করে ক্ষুদ্র শৈবাল। অহংকার স্পিত চিত্তে শির উচু করে তার এই এক ফোটা জল প্রদানের কথা ঘোষণা করে দিঘিকে এই কথা লিখে …

শৈবাল দিঘিরে বলে উচ্চ করি শির লিখে রেখো, এক ফোঁটা দিলেম শিশির। Read More »

যে পূজার বেদী রক্তে গিয়েছে ভেসে, ভাঙো ভাঙো আজি ভাঙো তারে নিঃশেষে/ ধর্মকারার প্রাচীরে বজ্র হানো, এ অভাগা দেশে জ্ঞানের আলোক আনো ।

মানুষের জীবনের অন্যান্য নিত্যকর্ম গুলির মধ্যে অন্যতম কর্ম হলো পূজা অর্চনা। ভগবানের উদ্দেশ্যে নিবেদিত পূজা কালক্রমে পর্যভূষিত হয়েছে ধর্ম নামক কারাগারে। ধর্মের অত্যাচারে বহু মানুষ হয়েছে বলি ,তার ফলে পূজার বেদী ভেসে গেছে রক্তে। তাই যে পূজার বেদী রক্তে ভেসে গেছে সেই বেদি অচিরেই ভেঙে ফেলা উচিত। এই ধর্মকারার প্রাচীরে বজ্রসহ আঘাত হানার জন্য শিক্ষার …

যে পূজার বেদী রক্তে গিয়েছে ভেসে, ভাঙো ভাঙো আজি ভাঙো তারে নিঃশেষে/ ধর্মকারার প্রাচীরে বজ্র হানো, এ অভাগা দেশে জ্ঞানের আলোক আনো । Read More »

অন্যায় যে করে আর অন্যায় যে সহে / তব ঘৃণা যেন তারে তৃণসম দহে।

পৃথিবীতে এমন কিছু মানুষ আছেন যারা অন্য মানুষের উপর নিরর্থক অন্যায় অত্যাচার করে । কিন্তু অত্যাচারিত মানুষরা শত অত্যাচার সহ্য করেও তাদের উপর হওয়া অন্যায়ের প্রতিবাদ করে না। কিন্তু এই প্রতিবাদ না করাটাও এক ধরনের অন্যায়। তাই অন্যায় কারী যেমন সকলের ঘৃণায় তৃণের মতো দগ্ধ হয় তেমনি অন্যায় সহ্য কারিও সকলের ঘৃণার তৃণের মতো দগ্ধ …

অন্যায় যে করে আর অন্যায় যে সহে / তব ঘৃণা যেন তারে তৃণসম দহে। Read More »

কে লইবে মোর কার্য ? কহে সন্ধ্যা রবি, শুনিয়া জগত রহে নিরুত্তর ছবি। মাটির প্রদীপ ছিল, সে কহিল, “স্বামী ,আমার যেটুকু সাধ্য করিব তা আমি”।

মহাকাশের অন্যান্য উজ্জ্বল নক্ষত্র গুলির মধ্যে অন্যতম হলো সূর্য । সমস্ত গ্রহের মতো সূর্যালোক পৃথিবীও আলোকিত হয়। কিন্তু দিনের শেষে সূর্যাস্তের আগে পৃথিবীকে আলোকিত করার ভার কে নেবে সূর্য তা জিজ্ঞাসা করলে, পৃথিবীতে ফুটে ওঠে এক নিরুত্তর ছবি। যা খুবই হতাশাজনক। কিন্তু ঠিক সেই মুহুর্তে ক্ষুদ্র মাটির প্রদীপ পৃথিবীকে আলোকিত করার ভার নিয়ে ঘোষণা করে …

কে লইবে মোর কার্য ? কহে সন্ধ্যা রবি, শুনিয়া জগত রহে নিরুত্তর ছবি। মাটির প্রদীপ ছিল, সে কহিল, “স্বামী ,আমার যেটুকু সাধ্য করিব তা আমি”। Read More »

কেরোসিন শিখা বলে মাটির প্রদীপে, ভাই বলে ডাকো যদি দেব গলা টিপে। হেনকালে গগনেতে উঠিলেন চাঁদা, কেরোসিন শিখা বলে ‘এসো মোর দাদা।’

সূর্যাস্তের পর ঘরকে আলোকিত করার জন্য জ্বালা কেরোসিনের শিখা মাটির প্রদীপের আত্মীয় সুলভ আহ্বানকে তাচ্ছিল্য করে। তাকে মৃত্যুর ভয় দেখায় । এই ঘটনার কিছু সময় পরে যখন আকাশে চাঁদের উদয় হয় যা কেরোসিনের প্রদীপের থেকে অপেক্ষাকৃত বেশি উজ্জ্বল , তখন কেরোসিনের প্রদীপ তাকে দাদা বলে আহ্বান করে। আকাশে উদিত চন্দ্রালোককে পৃথিবীকে আলোকিত করার জন্য স্বাগত …

কেরোসিন শিখা বলে মাটির প্রদীপে, ভাই বলে ডাকো যদি দেব গলা টিপে। হেনকালে গগনেতে উঠিলেন চাঁদা, কেরোসিন শিখা বলে ‘এসো মোর দাদা।’ Read More »

Scroll to Top